• ২১শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ৮ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ , ১১ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

জোটের খোঁজে নওয়াজ বিলাওয়াল, বিক্ষোভের ডাক ইমরান খানের , পাকিস্তানে তিন দলই চায় প্রধানমন্ত্রিত্ব

usbnews
প্রকাশিত ফেব্রুয়ারি ১২, ২০২৪
জোটের খোঁজে নওয়াজ বিলাওয়াল, বিক্ষোভের ডাক ইমরান খানের , পাকিস্তানে তিন দলই চায় প্রধানমন্ত্রিত্ব
নিউজটি শেয়ার করুনঃ

সেনা বাধা আর বিরোধীদের নানান কৌশল টপকে নির্বাচনি জয়ের দৌড়ে এগিয়ে আছেন খানের দল তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই)। রবিবার ডন ও জিইও নিউজের সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী, স্বতন্ত্ররা ১০১টি আসন পেয়েছেন। যার মধ্যে সরাসরি পিটিআই সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থীরা পেয়েছেন ৯৩টি আসন। পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজ (পিএমএল-এন) ৭৫টি। এর মধ্যে অবশ্য পিএমএল ৩টি। পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি) ৫৪টি এবং মুত্তাহিদা কওমি মুভমেন্ট (এমকিউএম) ১৭টি আসনে জয়ী হয়েছে। দশটি ছোট দল বাকি ১৭টি আসন পেয়েছে। ২ আসনের গণনা স্থগিত করা হয়েছে। পিটিআই ভোটের সব থেকে বেশি আসন নিয়ে সেনা-সমর্থিত পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজ (পিএমএল-এন)-এর ক্ষমতায় জয়ী হওয়ার সম্ভাবনাকে ধ্বংস করে দিয়েছে।

অস্থির নির্বাচনি ঝড়ে উত্তাল পাকিস্তান! উদ্বেগ-হতাশা, আশা-প্রত্যাশা নিয়ে বৃহস্পতিবার বহুল প্রত্যাশিত ভোট গ্রহণ শেষ হলেও এখন শুরু হয়েছে ‘নতুন নাটক’। একের পর এক চিত্রায়ণে বদলে যাচ্ছে দৃশ্যপট। ভোটের আগে সেনা-সরকারের নির্বাচনি ছক আর ভোটের পর শুরু হলো বিলম্বিত ফল প্রকাশের ‘পর্ব’ । আর এখন চলছে সরকার গঠনের ‘অঙ্ক’। নায়কের পেখমে সঙ্গী (জাট) খোঁজার শিহরণে দুলছেন দুই পার্শ্বনায়ক-নওয়াজ শরিফ, বিলাওয়াল ভুট্টো। একই সঙ্গে চাঙা হয়ে উঠেছে দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের ডাকে তেহরিক-ই ইনসাফের (পিটিআই) ফলাফলে কারচুপির বিরুদ্ধে দেশব্যাপী বিক্ষোভের ‘সনেমা’।

কেন্দ্রে সরকার গঠন করতে চায় পিটিআই

পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) প্রতিষ্ঠাতা ইমরান খান আদিয়ালা কারাগারে বন্দি। তবে সেখান থেকেই দলকে নির্দেশনা দিচ্ছেন তিনি। নির্বাচনে ইমরানপন্থি স্বতন্ত্র প্রার্থীরা সবার চেয়ে এগিয়ে থাকায় তারা কেন্দ্র, পাঞ্জাব ও খাইবার পাখতুনখাওয়া প্রদেশে সরকার গঠন করতে চায়।

রোববার রাওয়ালপিন্ডির আদিয়ালা কারাগারের বাইরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ কথা বলেন পিটিআইয়ের আইনজীবী উমায়ের খান নিয়াজি।

এর আগেও দলটির পক্ষ থেকে বলা হয়, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী কে হবেন তা নির্ধারণ করবেন ইমরান খান।

প্রধানমন্ত্রী হতে চান বিলাওয়াল

পাকিস্তানের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিলাওয়াল ভুট্টো এবার দেশটির প্রধানমন্ত্রী হতে চান। তার দলের মুখপাত্র খুরশিদ আলম এর আগে সাংবাদিকদের জানান, যদি নওয়াজ শরিফকে বাদ দিয়ে বিলাওয়ালকে প্রধানমন্ত্রী বানানো হয় তবে তাদের দল পিএমএল-এনের সঙ্গে জোট করবে।

ইতোমধ্যে পিপিপি চেয়ারম্যান আসিফ আলি জারদারির সঙ্গে পিএমএল-এনের নেতা শাহবাজ শরিফ বৈঠক করেছেন। তবে তাদের মধ্যে কী চুক্তি হয়েছে তা এখনো অস্পষ্ট।

এ ব্যাপারে বিলাওয়াল সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, পিএমএল-এনের সঙ্গে জোট গঠন নিয়ে পিপিপির আনুষ্ঠানিক কোনো আলোচনা হয়নি।

এদিকে পিপিপি সোমবার ইসলামাবাদে কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির বৈঠক ডেকেছে।

নওয়াজকে প্রধানমন্ত্রী করতে চায় পিএমএল-এন

পিএমএল-এন নির্বাচনে বহু আগে থেকেই নওয়াজ শরিফকে প্রধানমন্ত্রী বানাতে চায়। দলটি নির্বাচনে দল বিবেচনায় সবচেয়ে বেশি আসনও পেয়েছে জাতীয় পরিষদে। এজন্য সবার আগেই জোট গঠনের তৎপরতায় সরব দেখা যায় নওয়াজকে।

এবার দলটির নেতা ও পাকিস্তানের সাবেক আইনমন্ত্রী আজম নাজির তারার বলেছেন, এটা সবাই জানে যে, কোনো একক রাজনৈতিক দলের স্বাধীনভাবে সরকার গঠনের ম্যান্ডেট নেই। তাই জোট গঠন করাই আমাদের লক্ষ্য।

স্বতন্ত্রদের সঙ্গে যোগাযোগ করছে পিপিপি

পিএমএল-এনের পর এবার ইমরানপন্থি স্বতন্ত্রদের দলে ভেড়ানোর চেষ্টা করছে পিপিপি। দলটি জানিয়েছে, ইতোমধ্যে একাধিক বিজয়ী স্বতন্ত্র প্রার্থীর সঙ্গে যোগাযোগ করেছে পিপিপি।

পিপিপি জানিয়েছে, স্বতন্ত্রদের জন্য আমাদের দরজা সব সময়ই খোলা আছে। তাছাড়া স্বতন্ত্রদের প্রতিও দৃষ্টি রেখেছে পিপিপি।

তবে এ ব্যাপারে পিটিআই বলছে, তারা কোনো দলে যোগ দেবে না।

বৈঠকের পর দুই দলের দুই মত

মুত্তাহিদা কওমি মুভমেন্ট-পাকিস্তানের (এমকিউএম-পি) সঙ্গে ঘণ্টাখানেক বৈঠকের পর পিএমএল-এন নেতা শাহবাজ শরিফ জানিয়েছেন, দলটি তাদের সঙ্গে জোট করতে রাজি হয়েছে। তিনি জানান, এক ঘণ্টার বৈঠকের পর আসন্ন সরকারে একসঙ্গে কাজ করার জন্য একটি নীতিগত চুক্তিতে পৌঁছেছে এ দুই দল।

এদিকে বৈঠক থেকে বের হয়ে এমকিউএম-পি নেতা খালিদ মকবুল সিদ্দিকী বলেছেন, পিএমএল-এনের সঙ্গে আমাদের সরকার গঠন নিয়ে কোনো কথা হয়নি। করাচিতে সাংবাদিকদের সঙ্গে তিনি এ কথা বলেন।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন এমকিউএম-পি এর খালিদ মকবুল সিদ্দিকী, ড. ফারুক সাত্তার, কামরান তেসোরি এবং মোস্তফা কামাল। আর পিএমএল-এনের পক্ষ থেকে নওয়াজ ও শাহবাজ শরিফ, ইসহাক দার, মরিয়ম নওয়াজ, রানা সানাউল্লাহ, আয়াজ সাদিক, খাজা সাদ রফিক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

জোটের খোঁজে একে অপরের সাহারা হয়েছেন পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজ (পিএমএল-এন) দলের নেতা নওয়াজ শরিফ এবং পাকিস্তান পিপলস পার্টির (পিপিপি) নেতা বিলাওয়াল ভুট্টো। রীতিমতো টানাটানি শুরু হয়েছে দেশটির প্রধানমন্ত্রী পদ নিয়ে। টানাহ্যাঁচড়া চলছে সরকার গঠন বাসনা নিয়ে। কে বেশি আসন পেল সেটা বড় কথা নয়। সরকারে যেতে চায় তিন দলই। প্রধানমন্ত্রী হতে চান তিন মঞ্চের তিন নায়কই। জয়ের আসন সংখ্যা পূর্ণ করতে না পেরে নওয়াজ শরিফের দল পিএমএল-এন জোট সরকার গঠনের দৌড়ে পিপিপির সঙ্গে ব্যাপক দরকষাকষি শুরু করেছে।