• ১৬ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ৩রা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ , ৭ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

মার্কিন প্রেসিডেন্ট একদিকে গাজায় যুদ্ধবিরতির কথা বলছেন, এর মধ্যেই এই অস্ত্র সহায়তা সরবরাহের খবর এলো

usbnews
প্রকাশিত ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০২৪
মার্কিন প্রেসিডেন্ট একদিকে গাজায় যুদ্ধবিরতির কথা বলছেন,  এর মধ্যেই এই অস্ত্র সহায়তা সরবরাহের খবর এলো
নিউজটি শেয়ার করুনঃ

গাজার দক্ষিণ শহর রাফায় নির্বিচারে বিমান হামলা গণহত্যা চালিয়ে যাচ্ছে  ইসরায়েল। এই বিধ্বংসী হামলায় ইসরায়েলকে সহায়তা করতে আরও অস্ত্র পাঠাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট একদিকে গাজায় যুদ্ধবিরতির কথা বলছেন,  এর মধ্যেই এই অস্ত্র সহায়তা সরবরাহের খবর এলো। খবর আল জাজিরা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মার্কিন কর্মকর্তাদের বরাতে শুক্রবার ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রস্তাবিত অস্ত্র সরবরাহের মধ্যে রয়েছে প্রায় এক হাজার এমকে-৮২, পাঁচশ পাউন্ড (২২৭ কেজি) বোমা এবং কেএমইউ-৫৭২ জয়েন্ট ডাইরেক্ট অ্যাটাক মিউনিশন।

এছাড়া যুক্তরাষ্ট্র আরও বোম নিষ্ক্রিয় অস্ত্র পাঠানোর কথা বিবেচনা করছে, যার মোট চালানের মূল্য কয়েক মিলিয়ন ডলার অনুমান করা হয়েছে। এসব ইসরায়েলকে মার্কিন সামরিক সহায়তা থেকে প্রদান করা হবে।

প্রতিবেদনে জেরুজালেমে মার্কিন দূতাবাস দ্বারা প্রস্তাবিত অস্ত্র হস্তান্তরের একটি মূল্যায়ন উদ্ধৃত করে বলা হয়েছে যে ইসরায়েলি সরকার উদীয়মান আঞ্চলিক হুমকির বিরুদ্ধে ইসরায়েলের প্রতিরক্ষার জন্য এই অস্ত্রগুলো দ্রুত পাঠানোর অনুরোধ করেছে।

আল জাজিরা জানায়, মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রশাসন এ পর্যন্ত দুবার কংগ্রেসকে পাস কাটিয়ে ইসরায়েলে জরুরীভাবে বোমা এবং অন্যান্য যুদ্ধাস্ত্র পাঠিয়েছে।

এদিকে ইসরায়েল জানিয়েছে যে তারা শীঘ্রই মিশরের সীমান্তবর্তী গাজা উপত্যকার দক্ষিণ শহর রাফাহতে স্থল আক্রমণ শুরু করবে। এই শহরে ইসরায়েলি হামলায় গাজার ২৩ লাখ জনসংখ্যার আনুমানিক ১৪ লাখ বাস্তুচ্যুত অঅধিবাসী আশ্রয় নিয়েছে।

ইতিমধ্যে পশ্চিমা নেতারাও এই স্থল আক্রমণের পরিকল্পনার বিরোধিতা করেছেন। আর এরই মধ্যে ইসরায়েলকে অস্ত্র সহায়তা দিতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র।