• ১৬ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ৩রা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ , ৭ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

গাজা-বাসীকে জোর করে মিশরে পাঠাবেন না:মিউনিখের সম্মেলনে ফিলিস্তিনের প্রধানমন্ত্রীর

usbnews
প্রকাশিত ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০২৪
গাজা-বাসীকে জোর করে মিশরে পাঠাবেন না:মিউনিখের সম্মেলনে ফিলিস্তিনের প্রধানমন্ত্রীর
নিউজটি শেয়ার করুনঃ

ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ (পিএ) প্রধানমন্ত্রী মোহাম্মদ শাতায়েহ বলেছেন, ইসরাইল যেন গাজার ফিলিস্তিনিদের মিশরে জোর করার পাঠানোর চেষ্টা না করে।মিউনিখের সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘আমি জানি, গাজা থেকে লোকেদের সরাতে এটা একটা ইসরাইলি পরিকল্পনা ছিল। আমরা এবং মিশরীয়রা কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছি যাতে এটা না ঘটে।’আনুমানিক ১৫ লাখ ফিলিস্তিনি এখন জনাকীর্ণ এলাকায় আশ্রয় নিয়েছে। অভিজ্ঞ কূটনীতিকদের একাংশ এবং মানবিক সংস্থাগুলো তাদের গুরুতর উদ্বেগের কথা বলেছেন। বেশ কয়েকটি আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, ফিলিস্তিনি শরণার্থীদের থাকার জন্য সীমান্তের পাশে একটি অভ্যর্থনা শিবির নির্মাণ করছে মিশর।শাতায়েহ বলেন, ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের হামাসের সঙ্গে যোগাযোগ নেই। ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ ফাতাহ রাজনৈতিক দল দ্বারা পরিচালিত হয়। তিনি সহিংসতা বন্ধ করে ফিলিস্তিনের সমস্যার সমাধানের আহ্বান জানান।শাতায়েহ উল্লেখ করেছেন, ফাতাহ এবং হামাস-সহ বিভিন্ন ফিলিস্তিনি গোষ্ঠী রাশিয়ার আমন্ত্রণে বৃহস্পতিবার মস্কোতে দেখা করবে।

বিশেষ করে রাফা শহরটি হলো গাজার সর্ব দক্ষিণে। তার সঙ্গে রাফা ক্রসিং পয়েন্টের মাধ্যমে মিশরের সঙ্গে যুক্ত। এসব মানুষের ওপর রাফা ছেড়ে যাওয়ার চাপ দেয়ার ফলে তারা মিশরের দিকে বৈধ বা অবৈধ পথে পাড়ি দেয়ার চেষ্টা করতে পারেন। এরই প্রেক্ষিতে ফিলিস্তিনের প্রধানমন্ত্রী মোহাম্মদ সত্যয়ে ইসরাইলের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন গাজার দক্ষিণে আশ্রয় নেয়া বাস্তুচ্যুত মানুষগুলোকে উত্তরাঞ্চলে তাদের বাড়িঘরে ফেরত আসার অনুমতি দিতে। মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন। এ সময় তিনি ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুকে সতর্ক করেন।

বলেন, তাদের শক্তি প্রয়োগের ফলে ফিলিস্তিনবাসী সীমান্ত অতিক্রম করে মিশরে প্রবেশ করতে পারেন। কিন্তু এসব বাস্তুচ্যুত মানুষের এই উদ্যোগ বন্ধ করতে যৌথ প্রচেষ্টায় জোর দিয়েছে ফিলিস্তিন এবং মিশর। তিনি জোর দিয়ে বলেন, কাউকে সীমান্ত অতিক্রম করতে দিচ্ছে না মিশর।