• ১৬ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ৩রা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ , ৭ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

দিল্লি ঢুকতে মরিয়া ১৪ হাজার কৃষক, সংঘর্ষ পুলিশের সঙ্গে

usbnews
প্রকাশিত ফেব্রুয়ারি ২১, ২০২৪
দিল্লি ঢুকতে মরিয়া ১৪ হাজার কৃষক, সংঘর্ষ পুলিশের সঙ্গে
নিউজটি শেয়ার করুনঃ

ফের ভারতের পাঞ্জাব-হরিয়ানার সীমানা পেরিয়ে রাজধানী দিল্লিতে ঢোকার চেষ্টা আন্দোলনকারী কৃষকদের। বুধবার প্রায় ১৪ হাজার কৃষক শম্ভু সীমানা পার হতে গেলে পুলিশ ও আধাসেনার সঙ্গে সংঘর্ষ বাধে। আন্দোলনকারীদের থামাতে কাঁদানে গ্যাস ছোড়ে পুলিশ। পাল্টা, ট্র্যাক্টরগুলিকে ‘সাঁজোয়া যানের’র মতো ঢাল বানিয়ে সীমান্ত পেরোনোর চেষ্টা করছেন কৃষকেরা।

ভারতের মোদি সরকার বার বার আন্দোলনকারীদের সঙ্গে বৈঠকে বসে ‘সমাধান’ খোঁজার চেষ্টা করেছে। কিন্তু পাঁচ বার বৈঠকে বসেও কোনও রফাসূত্র বার হয়নি। বুধবার ফের এক বার আন্দোলনকারীদের বৈঠকে বসার প্রস্তাব দিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অর্জুন মুন্ডা।

নিজেদের দাবি কেন্দ্রের কাছে পৌঁছে দিতে আবার নতুন করে অভিযানে নেমেছেন কৃষকেরা। আর তা নিয়ে সকাল থেকেই ধুন্ধুমার পরিস্থিতি পাঞ্জাব-হরিয়ানা শম্ভু সীমানায়। আন্দোলন আটকাতে মরিয়া হরিয়ানার মনোহর লাল খট্টরের সরকার। কৃষকদের বিক্ষোভ রুখে দিতে পুলিশের প্রচুর বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। পিছিয়ে নেই আন্দোলনকারী কৃষকেরাও।

দিল্লির অভিমুখে এগিয়ে যাওয়ার প্রস্তুতি হিসেবে শম্ভু সীমান্তে ‘মানববন্ধন’ তৈরি করেছে কৃষক সংগঠনগুলি। সীমানার এক দিকে কৃষকদের লরি এবং ট্র্যাক্টরের লাইন। অন্য দিকে, সারিবদ্ধ হরিয়ানা পুলিশের বাহিনী। প্রতিবাদী কৃষকেরা তাদের ট্যাক্ট্রর দিয়ে পুলিশের ব্যারিকেড ভেঙে হরিয়ানায় প্রবেশ করে যেতে পারেন, এই উদ্বেগ থেকে পুলিশ মোটা কাঁটাতারের বেড়া বসিয়েছে।

আন্দোলনের তেজ বৃদ্ধি পাওয়ায় হরিয়ানার পাশাপাশি সতর্ক রয়েছে দিল্লির পুলিশ-প্রশাসনও। রাজধানী দিল্লিকে বহুস্তরীয় নিরাপত্তা বলয় দিয়ে সুরক্ষিত করা হয়েছে। দিল্লির সিঙ্ঘু, টিকরি এবং গাজিপুর সীমানায় কাঁটাতার, পেরেক, সিমেন্ট এবং পাথরের দেয়াল দিয়ে ব্যারিকেড তৈরি করা হয়েছে। জলকামান এবং লাঠি নিয়েও তৈরি দিল্লি এবং হরিয়ানার পুলিশ।

কৃষকদের আটকাতে দিল্লি সীমানায় ‘লং-রেঞ্জ অ্যাকোস্টিক ডিভাইস’ও বসানো হয়েছে। যার কাজ অসহনীয় শব্দ তৈরি করা এবং কৃষকদের পিছু হটতে বাধ্য করা। দিল্লি পুলিশের সমস্ত ছুটি বাতিল করা হয়েছে। লাল কেল্লা এবং ইন্ডিয়া গেটের মতো গুরুত্বপূর্ণ এলাকাতে কঠোর নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে। সূত্র: এবিপি।