• ১৬ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ৩রা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ , ৭ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

জুতায় দুই মেয়ের নাম লিখেই আজ খেলতে নেমেছিলেন উসমান খাজা

Usbnews.
প্রকাশিত ডিসেম্বর ২৬, ২০২৩
জুতায় দুই মেয়ের নাম লিখেই আজ খেলতে নেমেছিলেন উসমান খাজা
নিউজটি শেয়ার করুনঃ

মেলবোর্নে আজ ৪২ রান করে আউট হয়েছেন উদ্বোধনী জুটিতে ডেভিড ওয়ার্নারের সঙ্গে ৯০ রানে জুটি গড়া খাজা।এরপর আজ মেলবোর্নে শুরু হওয়া অস্ট্রেলিয়া-পাকিস্তান দ্বিতীয় টেস্টটা জুতায় শান্তির প্রতীক পায়রার স্টিকার লাগিয়ে খেলতে চেয়েছিলেন খাজা। আইসিসির আপত্তিতে সেটিও পারেননি। তবে একদম সাদা জুতা পরে আজ ব্যাটিংয়ে নামেননি খাজা, প্রতিবাদের জন্য একটু অন্য রকম উপায় বেছে নিয়েছেন। নিজের দুই মেয়ে আয়েশা ও আয়লার নাম লিখেছেন জুতায়।

পার্থে প্রথম টেস্টের আগে জুতায় ‘স্বাধীনতাই মানবাধিকার’ ও ‘প্রতিটি জীবনের মূল সমান’ স্লোগান লিখে অনুশীলন করলেও ম্যাচে এমন কিছু করার অনুমতি মেলেনি খাজার। কারণ হিসেবে আইসিসি জানিয়েছিল রাজনৈতিক, ধর্মীয় ও জাতিগত কিছু নিয়ে বার্তা দেওয়া যাবে না।

অস্ট্রেলিয়ার বেশ কটি সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে গত কয়েক দিনে বেশ কয়বার ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে এ নিয়ে কথা বলেছেন খাজা। কী ধরনের বার্তায় কোনো আপত্তি থাকবে না, মূলত সেটি নিয়েই ছিল বৈঠকগুলো।পার্থে অস্ট্রেলিয়া-পাকিস্তান সিরিজের প্রথম টেস্ট শুরুর আগে অনেকটা আলোচনা ছিল উসমান খাজাকে নিয়েই। জুতায় ইসরায়েলি আগ্রাসনে ক্ষতবিক্ষত ফিলিস্তিনের জন্য সহানুভূতি জানিয়ে স্লোগান লিখে টেস্টটা খেলতে চেয়েছিলেন খাজা। ‘রাজনৈতিক’ কারণ দেখিয়ে অস্ট্রেলিয়ার ওপেনারকে তখন অনুমতি দেয়নি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সংস্থা আইসিসি।

দুই দিন পর মেলবোর্নে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্ট খেলতে নামবে অস্ট্রেলিয়া ও পাকিস্তান। সেই ম্যাচের আগেও আবার আলোচনায় খাজার নাম। কোনো স্লোগান নয়, এবার নিজের ব্যাটে ও জুতায় শান্তির প্রতীকের স্টিকার লাগিয়ে বক্সিং ডে টেস্টটা খেলতে চেয়েছিলেন পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত এই ক্রিকেটার। তবে অস্ট্রেলিয়ার সংবাদমাধ্যম জানাচ্ছে আইসিসি খাজাকে সেই অনুমতিও দেয়নি।

পার্থ টেস্টের আগে অনুশীলনে নিজের জুতায় ‘স্বাধীনতা একটি মানবাধিকার’ এবং ‘প্রতিটি জীবনের মূল্য সমান’—এমন স্লোগান লিখেছিলেন খাজা। তবে সেটি পরে টেস্ট খেলতে নামলে আইসিসির শাস্তির মুখোমুখি হবেন, এমন জানার পর কালো আর্মব্যান্ড পরে নেমেছিলেন খাজা। এর আগে আইসিসির সঙ্গে লড়াই করার ঘোষণাও দেন তিনি।

আইসিসির সঙ্গে লড়াই করে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন খাজা

অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার উসমান খাজাকে ফিলিস্তিনের প্রতি সংহতি জানাতে না দেওয়ায় আইসিসির কঠোর সমালোচনা করেছেন মাইকেল হোল্ডিং। খাজাকে এবার কিছু করতে না দিলেও ‘ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার’ বা ‘এলজিবিটিকিউ’ আন্দোলনের পক্ষে কিছু করার অনুমতি কেন দেওয়া হয়েছিল, এমন প্রশ্নও তুলেছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের কিংবদন্তি সাবেক ফাস্ট বোলার ও ধারাভাষ্যকার।

https://x.com/Uz_Khawaja/status/1521405466391478272?s=20

খাজা জানিয়েছেন, মানবতার ব্যাপারে তাঁর যা উপলব্ধি, শুধু সেটিই জানাতে চেয়েছেন। এর বাইরে গোপন কোনো ‘অ্যাজেন্ডা’ নেই তাঁর। অস্ট্রেলিয়ান ওপেনার বলেছেন, ‘আমার কোনো অ্যাজেন্ডা নেই, শুধু নিজে যে ব্যাপারে আবেগী ও কঠোর, সেসব ব্যাপারে আলোকপাত করেছি শুধু।’
এরপর খাজা বলেন, ‘আমি এটি যথাসম্ভব সম্মানসূচক উপায়েই করার চেষ্টা করছি। জুতায় যা লিখেছি, বেশ কিছু দিন ধরেই সেটি ভেবেছি। আমি নিশ্চিত করেছি, যাতে জনসংখ্যার একটা অংশ, কোনো ধর্মীয় বিশ্বাস ও সম্প্রদায়ের কাউকে যাতে বাদ না দিই। এ কারণে ধর্মকে টানিনি। আমি মানবতার কথা বলছি। এটিই সত্যিকারের গুরুত্বপূর্ণ অংশ।’